শনিবার, মার্চ ২জাতির কথা বলে
Shadow

হেলথ কর্নার

লাল-পালংয়ে যা পাবেন আপনি

লাল-পালংয়ে যা পাবেন আপনি

হেলথ কর্নার
লালশাক দেখতে যেমন দারুণ, খেতেও দারুণ মজা। সেই সাথে উপরি পাওনা লাল রঙে রাঙে ঠোঁট। পালংশাকও শরীরের জন্য বেশ উপকারী। শীতকালে এই দুই শাক পাওয়া যায় প্রচুর পরিমাণে, দামও থাকে মোটামুটি হাতের নাগালে। সুস্বাদু শাকের পুষ্টিগুণও দারুণ। লালশাকের উপকারিতা : লালশাক ভিটামিন এ'তে ঠাসা। এই শাক নিয়মিত খেলে দৃষ্টিশক্তি ভালো থাকে। রাতকানা রোগ প্রতিরোধও বাড়ে। ভিটামিন সির অভাবজনিত রোগ স্কার্ভি প্রতিরোধ করে লালশাক। লালশাকের আঁশজাতীয় অংশ খাবার পরিপাকে সহায়তা করে এবং কোষ্ঠ্যকাঠিন্য দূর করে। এই শাকে রয়েছে প্রচুর আয়রন। শরীরে লোহিত রক্তকণিকার মাত্রা বাড়ায় লালশাক, সে কারণে অ্যানিমিয়া রোগী এবং অন্তঃসত্ত্বা নারীদের জন্য এ শাক খুবই উপকারী। নিয়মিত লালশাক খেলে কিডনির কার্যক্ষমতা বাড়ে। রক্তে উপস্থিত ক্ষতিকর উপাদানও শরীর থেকে বের হয়ে যায়। শরীরের টক্সিক উপাদান দূর করে এবং ক্যানসার কোষ উৎপন্ন হতে দেয় না। লালশাকে থাকা ভিটামি...
তেজপাতার মসলা হিসেবে বহুল স্বাস্থ্যগুণ

তেজপাতার মসলা হিসেবে বহুল স্বাস্থ্যগুণ

হেলথ কর্নার
তেজপাতা মসলা হিসেবে বহুল ব্যবহার রয়েছে। এর ভেষজ গুণ শুধু খাবারের স্বাদই বাড়ায় না, স্বাস্থ্য সুরক্ষাতেও এর জুড়ি মেলা ভার। এত গুণের কারণে পৃথিবীর বিভিন্ন দেশে তেজপাতার কদর রয়েছে। তেজপাতায় আছে ভিটামিন ‘ই’ ও ‘সি’, রয়েছে ফলিক অ্যাসিড। এতে থাকা বিভিন্ন খনিজ উপাদান ব্যাকটেরিয়া দূর করতে সহায়তা করে। ঘরোয়া চিকিৎসায় তেজপাতা : তেজপাতা আমাদের দেশের মানুষের কাছে খুবই পরিচিত একটি গাছ। এর পাতা ব্যবহার করা হয় মূলত মসলা হিসেবে। খাবারে এটি ব্যবহার করা হয় এর ভেষজ গুণাগুণের কারণে। ভেষজ গুণের কারণেই তেজপাতা ঘরোয়া চিকিৎসায় বহুলভাবে ব্যবহৃত হয় আমাদের দেশের আনাচকানাচে। তেজপাতা অরুচি দূর করে। এ জন্য তেজপাতা সেদ্ধ করে তার পানি খাওয়ার প্রচলন রয়েছে। মাথার হালকা ব্যথা বা মাথাধরা দূর করার জন্য লবঙ্গ ও তেজপাতা দিয়ে চা বানিয়ে খাওয়ারও প্রচলন আছে কোথাও কোথাও। মাড়িতে ব্যথা কিংবা ক্ষত হলে তেজপাতা–সেদ্ধ পানিতে অল্প পরিমাণ লব...
শীতে ত্বকের যত্নে কমলার খোসা

শীতে ত্বকের যত্নে কমলার খোসা

হেলথ কর্নার
শীতে ত্বকের ওপর অনেক বেশি প্রভাব পড়ে। কারণ এ সময় আবহাওয়ার সঙ্গে ত্বকের অনেক পরিবর্তন আসে। ত্বক শুষ্ক হয়ে যায়। তাই ত্বকে চাই বাড়তি যত্ন। অনেক সময় দেখা যায় নিয়মিত ময়েশ্চারাইজার ব্যবহারের পরও নিষ্প্রাণ হয়ে পড়ে ত্বক। তবে আপনি জানেন কী? ত্বকের শুষ্কতা দূর করতে পারে কমলার খোসা। কলার খোসা রোদে শুকিয়ে গুঁড়া করে ব্যবহার করতে পারেন। এই গুঁড়া ব্যবহার করুন বিভিন্ন ফেসপ্যাকে। আসুন জেনে নিই কীভাবে ব্যবহার করবেন কমলার খোসা- ১. রোদে পোড়া দাগ দূর করতে ২ টেবিল চামচ কমলার খোসা গুঁড়া, কয়েক ফোঁটা লেবুর রস, ১ টেবিল চামচ চন্দন গুঁড়া মিশিয়ে পেস্ট তৈরি করুন। মিশ্রণটি ত্বকে লাগিয়ে রাখুন। ৩০ মিনিট পর ধুয়ে ফেলুন। ২. কমলার খোসার সঙ্গে মসুরের ডাল বেটে ত্বকে লাগিয়ে রাখুন না শুকানো পর্যন্ত। ৩. ব্রণের সমস্যায় খুব ভালো কাজ করে কমলার খোসা। একটি কমলার খোসা ১ কাপ পানিতে সিদ্ধ করে সেই পানি দিয়ে মুখ ধুয়ে নিন। নিয়মিত এভা...
ত্বকের যত্নে দুধ-মধুর ফেসপ্যাক

ত্বকের যত্নে দুধ-মধুর ফেসপ্যাক

হেলথ কর্নার
দুধ-মধুর ফেসপ্যাক যা ত্বকের ময়েশ্চারাইজার থেকে শুরু করে পিএইচ ব্যালেন্স বজায় রাখার জন্য দারুণ কার্যকর। দুধ ও মধুর এন্টিএজিং ফর্মুলা বয়সের ছাপ কমায়। কথিত আছে, মিসরের রানি ক্লিওপেট্রা নিজের ত্বককে তরুণ, উজ্জ্বল এবং পরিষ্কার রাখতে নিয়মিত দুধ দিয়ে গোসল করতেন। রইল দুধ ও মধুর তৈরি ফেসপ্যাকের কয়েকটি উপকারিতা। ত্বকের প্রাকৃতিক ময়েশ্চারাইজার: টক দুধে রয়েছে ল্যাকটিক অ্যাসিড, যা আলফা-হাইড্রক্সি অ্যাসিড (AHA) হিসেবে পরিচিত। এটি চমৎকার প্রাকৃতিক ময়েশ্চারাইজার হিসেবে কাজ করে। আর মধুতে থাকা ইমোলিয়েন্ট এবং হিউমেক্ট্যান্ট ত্বকের আর্দ্রতা ধরে রাখতে ভীষণ কার্যকরী। যা আপনার ত্বককে রাখবে নরম-কোমল। এ কারণেই ত্বকের যতেœ প্রস্তুতকৃত পণ্যে দুধ ও মধুর ব্যবহার করা হয়। দুধ ত্বককে রাখে দৃঢ় এবং মসৃণ: এক সমীক্ষায় দেখা গেছে, ১২ শতাংশ ট্রপিক্যাল ল্যাকটিক অ্যাসিড ত্বকের সূক্ষ্ম রেখা এবং বলিরেখা কমিয়ে দেয়। ফলে ত্বক দেখায় ...
যে কারণে আপনি খাবেন আদা চা

যে কারণে আপনি খাবেন আদা চা

হেলথ কর্নার
ক্লান্তি দূর কিংবা অতিথি আপ্যায়নে চায়ের জুড়ি নেই। তবে চায়ের সাথে আদা ব্যবহার করতে পারেন। এতে রয়েছে দারুণ উপকারিতা। হার্ট ভালো রাখে ও রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণ করে: নিয়মিত আদা চা পান করলে হার্ট ভালো থাকে এবং রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে থাকে। রক্ত জমাট বাঁধা নিয়ন্ত্রণ করে, কোলেস্টরল কমিয়ে এবং রক্ত সঞ্চালন বৃদ্ধি করে। রোগপ্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ে: আদায় অ্যান্টি-অক্সিড্যান্ট আছে। এটি রোগপ্রতিরোধ ক্ষমতা শক্তিশালী করে ও স্ট্রেস কমায়। আদা পানির বাষ্প নিলে বন্ধ নাক খুলে যায়। মাথা ঘোরা কমে: প্লেনে উঠলে বা পাহাড়ি রাস্তায় যদি মাথা ঘোরার সমস্যা থাকে, তা হলে আদা চা পান করলে সেটা কমে যায়। ব্লাড সুগার নিয়ন্ত্রণে রাখে: যাদের টাইপ ২ ডায়াবেটিস আছে, তাদের জন্য প্রতিদিন আদা চা পান করার সুফল অনেক। কারণ এই চা এইচবিএ১সি নিয়ন্ত্রণে রাখতে সাহায্য করে। মস্তিষ্ক সচল রাখে এবং অ্যালঝাইমারের মতো রোগের বিরুদ্ধে লড়াই করে। ক্রনিক ইনফ্লেমেশ...
আপনি কেন খাবেন লেবু চা

আপনি কেন খাবেন লেবু চা

হেলথ কর্নার
লেবু চা আমরা কম-বেশি সবাই পান করে থাকি। এই লেবু চায়েই আছে অসংখ্য উপকারী দিক, যা আমরা অনেকেই জানি না। চলুন জেনে নেই লেবু চায়ের উপকারি দিক– -রক্তে কোলেস্টেরলের মাত্রা কমাতে উল্লেখযোগ্য কাজ করে লেবু চা। এটি শরীরের উপকারী কোলেস্টেরলের মাত্রা যেমন বাড়িয়ে দেয়, তেমনি ক্ষতিকর কোলেস্টেরল রাখে নিয়ন্ত্রণে। -লেবু চা দাঁতের ব্যথা উপশমে সাহায্য করে। মাড়ি থেকে রক্ত পড়া বন্ধ করতে লেবু চা খুব কার্যকর। মুখের গন্ধ রোধেও লেবু চা কার্যকর। আর দাঁতে প্লাক জমার কারণে যে অনাকাঙ্ক্ষিত দাগ পড়ে, তা সরাতেও লেবু চা সাহায্য করে। -লেবু সাইট্রাস পরিবারভুক্ত। লেবুতে আছে উচ্চমাত্রার ভিটামিন সি আর পটাশিয়াম। আছে আরও কিছু প্রয়োজনীয় উপাদান। তবে ভিটাসিন সি আর পটাশিয়াম মিলে শরীরের উচ্চ রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে কাজ করে। উপরন্তু লেবুর পটাশিয়াম হৃৎপিণ্ডের কর্মক্ষমতাও বাড়ায়। -লেবুর রসের ভিটামিন সি দূর করে মানসিক চাপ ও দুশ্চিন্তা। মানসি...
‘অ্যান্টিবায়োটিক রেজিস্ট্যান্সের ফলে আগামী ২০ বছরে ক্যান্সারের চেয়েও বেশি রোগী মারা যাবে’

‘অ্যান্টিবায়োটিক রেজিস্ট্যান্সের ফলে আগামী ২০ বছরে ক্যান্সারের চেয়েও বেশি রোগী মারা যাবে’

হেলথ কর্নার
স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. এবিএম খুরশিদ আলম বলেছেন, অ্যান্টিবায়োটিক রেজিস্ট্যান্স, অ্যান্টিমাইক্রোবিয়াল রেজিস্ট্যান্স সারা পৃথিবীর সবচেয়ে বড় মাথা ব্যাথার কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার মতে, অ্যান্টিবায়োটিক রেজিস্ট্যান্সের ফলে আগামী বিশ বছরে ক্যানসারের চেয়েও বেশি রোগী মারা যাবে। এর জন্য বহুজাতিক প্রতিষ্ঠানগুলোর আগ্রাসী বাজারজাতকরণ ও যত্রতত্র অ্যান্টিবায়োটিক বিক্রি প্রধানভাবে দায়ী। শনিবার দুপুরে নারায়ণগঞ্জের বালুরমাঠ এলাকায় ব্লু পিয়ার মিলনায়তনে সোসাইটি অফ সার্জন অফ বাংলাদেশ (এস ও এস বি) এর নারায়ণগঞ্জ অঞ্চলের সাইন্টিফিক সেমিনারে অংশ নিয়ে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। তিনি বলেন, অ্যান্টিবোয়োটিক যে শুধু সার্জনরা বা ফিজিসিয়ানরা ব্যবহার করছে তা না। এই অ্যান্টিবায়োটিক এখন কৃষিতে ব্যবহার করা হচ্ছে, পল্ট্রি শিল্পে ব্যবহার করা হচ্ছে, এমনকি মশার লার্ভা মাড়ত...
অল্প পরিশ্রমে হাঁপিয়ে উঠছেন?

অল্প পরিশ্রমে হাঁপিয়ে উঠছেন?

হেলথ কর্নার
মানুষ যখন দুর্র্বল হয়ে পড়ে, সেটা যে কারণেই হোক। তখন অল্প পরিশ্রমে হাঁপিয়ে ওঠার সমস্যা পরিলক্ষিত হয়। এখন প্রশ্ন উঠতে পারে মানুষ কেন দুর্বল হয়ে পড়ে? বয়স্ক ব্যক্তিগণ দিন দিন দুর্বল হয়ে পড়েন এটাই প্রকৃতির নিয়ম। একই বয়সের ব্যক্তিরা যে একই মাত্রায় দুর্বল হবেন তা বলা যায় না, তবে ব্যক্তিভেদে দুর্বলতার তারতম্যে পরিলক্ষিত হয়। তাই দুুর্বলতার সঙ্গে বয়সের সরাসরি যোগাযোগ ঘটে না। মানব শরীরের যে কোনো সিস্টেম বা অঙ্গ অসুস্থ হয়ে পড়লে, শারীরিক দুর্বলতা আসবে এটাই স্বাভাবিক। অসুস্থতার প্রাথমিক পর্যায়ে শরীর অন্যান্য অঙ্গের সহায়তায় দুর্বলতা প্রতিরোধ করতে পারে, তবে এটা সাময়িক সময়ের জন্য, দীর্ঘমেয়াদি অসুস্থতায় মানুষ দুর্বল হয়ে পড়বে এটাই সচরাচর পরিলক্ষিত হয়। মানবদেহে হার্ট এবং ফুসফুসের অসুস্থতা দুর্বলতার মূল কারণ হিসেবে বিবেচ্য। ফুসফুসের অসুস্থতার রোগীগণ দীর্ঘমেয়াদি কাশিজনিত সমস্যায় আক্রান্ত হয়ে থাকে। এটা অনেক সময় ...
হৃৎপিন্ডের ক্রমবর্ধমান ও স্থিতিশীল ব্যথার উপশম

হৃৎপিন্ডের ক্রমবর্ধমান ও স্থিতিশীল ব্যথার উপশম

হেলথ কর্নার
সাধারণত হৃদরোগের অসুখ বলতে আমরা হৃদযন্ত্রের অক্সিজেন বহনকারী ধমনীর সংকীর্ণতা বা বন্ধ হয়ে যাওয়ার কারণে যে অসুস্থতার সৃষ্টি হয় তাকে বুঝি। এ রোগ সংক্রান্ত ACC/ AHA/ AATS/ SCAI/STS/FDA এর নির্দেশিকা বিশ্লেষণ করলে আমরা রোগের মূলত তিন প্রকার চিকিৎসা পদ্ধতি পেয়ে থাকি। প্রথমত: নিয়মিত ওষুধ খাওয়া, যা সব রোগীর জন্য গুরুত্বপূর্ণ। এটা সর্বস্তরের চিকিৎসা পদ্ধতির জন্য প্রযোজ্য। দ্বিতীয়ত: Invasive Treatment, যেমন হৃদপিন্ডের বন্ধপ্রায় ধমনীর মধ্যে ঢুকে এক বা একাধিক রিং (Stent/PCI) বসানো অথবা বুক কেটে বাইপাস সার্জারি (CABG) করা। যা মূলত বিলম্ববিহীন, দ্রুত ও জরুরি চিকিৎসা পদ্ধতির ক্ষেত্রে প্রযোজ্য। তৃতীয়ত: কোনো প্রকার Invesive পদ্ধতি ছাড়াই হৃৎপিন্ডের রক্তনালির সংকীর্ণতা বা বন্ধ হয়ে যাওয়া ধমনীর উপযুক্ত চিকিৎসা করা, যা কিনা ক্রমবর্ধমান ও স্থিতিশীল হৃৎপিন্ডের ব্যথার রোগীর জন্য প্রযোজ্য। এর মধ্যে উল্লেখযোগ্...
উচ্চ রক্তচাপ নিয়ে ৮ ভুল ধারণা

উচ্চ রক্তচাপ নিয়ে ৮ ভুল ধারণা

হেলথ কর্নার
??????? ????? ????????? ??????? ????? ??? ????????? ????? ??????? ??? ??.?? ????????? ???? ??? ?????????? ????? ??????? ?? ??.?? ???????? ???? ???, ?????? ???? ??????? ???? ???? ????????? ??? ???? ???? ???? ?? ????? ????????? ?? ?????????? ??????????? ????? ??? ? ????????? ???? ??????? ?? ????? ??, ?? ???????? ???? ??? ??? ???? ??????? ???? ??????? ??? ?????? ????- ?? ??????? ????? ???????? ??: ???? ????? ??? ??? ??? ??? ????, ??????? ??????? ??????? ????? ??? ???????? ??????? ??????? ???? ?????? ???? ??? ??? ??????? ????? ???? ?? ?????? ??????? ???????? ??? ????? ?? ??????? ???? ????? ???-??? ?????? ???-???-???? ???? ??????? ???? ? ????? ???? ??????? ????? ????? ??? ??? ???-??? ????? ???? ???? ???? ????? ????? ???? ???????? ???????? ????????? ???-?????????? ????? (????? ??, ?????????? ...